• Page Views 66

নিউইয়র্কে শিশুপুত্র হত্যার দায় থেকে মুক্তি পেলেন বাংলাদেশি

২০ দিন বয়সী শিশুপুত্রকে হত্যার দায় থেকে অবশেষে মুক্তি পেলেন রাশিদা চৌধুরী (২৫) নামে যুক্তরাষ্ট্র-প্রবাসী এক বাংলাদেশি। নিজ পুত্রকে হত্যার অভিযোগে দায়ের করা এই মামলায় প্রায় তিন বছর পর অবশেষে আদালত তাকে মুক্তি দিলো।

স্বামী মোহাম্মদ আহমেদ ও ২০ দিনের শিশুপুত্র রিদওয়ান আহমেদের সঙ্গে রাশিদা চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের রিচমন্ড হিল এলাকায় বসবাস করতেন।

২০১৫ সালের ৮ আগস্ট ভোররাতে রাশিদা তার শিশুপুত্র রিদওয়ানকে চতুর্থতলার বাথরুমের জানালা দিয়ে ফেলে দিলে নিচে কংক্রিটের ওপর পড়ে শিশুটি মারা যায়। এ সময় এক ধরনের শব্দ পেয়ে ওই অ্যাপার্টমেন্ট ভবনের একজন পুলিশকে খবর দেন। ‘জ্বিন-ভূতের আছরে ভূতের নির্দেশে’ একমাত্র পুত্রকে বাইরে ছুড়ে মারেন বলে গ্রেপ্তারের পর পুলিশকে জানান রাশিদা।

বিচারাধীন এ মামলার এক পর্যায়ে গত সপ্তাহে হত্যার দায় থেকে আদালত রাশিদাকে অব্যাহতি দিয়েছে বলে স্থানীয় সময় শুক্রবার জানান কুইন্স ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নির মুখপাত্র ইকিমুলিসা লিভিঙ্গসটন।

রাশিদার পক্ষে সাফাই সাক্ষী দেওয়া মানবাধিকারকর্মী মাজেদা উদ্দিন জানান, এখন রাশিদাকে আরও বিস্তারিত পরীক্ষা-পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবেই তাকে মানসিক রোগী বা বিকারগ্রস্ত নারী হিসেবে সন্দেহ করা হয়েছিল। এ বিবেচনায় রিকার আইল্যান্ড কারাগারের নির্জন কক্ষে আটকের সময় মাঝেমধ্যেই মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ এবং সমাজ-সংগঠকরা তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে নানা বিষয়ে আলোচনা করেন।

পুত্র রিদওয়ানকে তিনি কেন হত্যায় প্রবৃত্ত হলেন সে প্রসঙ্গেও একাধিকবার কথা হয় তার সঙ্গে। বিভিন্নভাবে বিভিন্ন সময়ে আলোচনার সময় সংশ্লিষ্ট সবার মতামত নেন তদন্ত কর্মকর্তারা।

রাশিদার ইচ্ছা অনুয়ায়ী তাকে তার স্বামী মোহাম্মদ আহমেদের কাছে বা রাশিদার মা-বাবার কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হতে পারে বলে জানান তদন্ত কর্মকর্তারা।
সূত্র: আমাদের সময়

Share

বিদেশে কাজ করতে গিয়ে মৃত্যু: প্রতিদিন গড়ে ১০ জন কর্মীর লাশ আসছে

Next Story »

সৈয়দ আশরাফের স্মরণে জর্ডানে দোয়া মাহফিল

Leave a comment

LifeStyle

  • মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদল

    5 days ago

    ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনকে সামনে রেখে দীর্ঘ প্রায় ৯ বছর পর মধুর ক্যান্টিনে প্রবেশ করেছে ছাত্রদল। আজ বুধবার সকাল ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের ...

    Read More
  • বেঙ্গল বই, যেখানে বইয়ের মাঝে ডুবে থাকা যায়

    5 days ago

    কথায় বলে মানুষের শ্রেষ্ঠ বন্ধু হতে পারে বই। আর যারা বইয়ের সাথে এমন বন্ধুত্ব গড়েছেন তারা চাইলে ডুবে যেতে পারেন বেঙ্গল বই এ থাকা হাজারো বইয়ের সমারোহে।  ...

    Read More
  • দীর্ঘ সময় অফিস করেও নিজেকে ফিট রাখতে

    5 days ago

    যারা অফিসে ডেস্কে কাজ করেন এদের মধ্যে মুটিয়ে যাওয়ার প্রবণতা খুব বেশি দেখা যায়। আর তাদের প্রধান অভিযোগ হচ্ছে, চেয়ারে বসে কাজ করে এত মোটা হয়ে যাচ্ছি।  এই ...

    Read More
  • করে নিন সেরা ডেট প্লান

    5 days ago

    সামনেই ভালোবাসা দিবস, দিনটি ঘিরে ভালোবাসার মানুষের জন্য সবারই রয়েছে বিশেষ পরিকল্পনা। এবারের দিনটিতে পরিকল্পনা এভাবে করুন, যেন মনে হয় এটাই প্রিয়জনের সঙ্গে এপর্যন্ত কাটানো সেরা ভ্যালেন্টাইন’স ডে।  ...

    Read More
  • হলুদে হলুদে ফাগুন বরণ

    5 days ago

    পহেলা ফাল্গুল এলেই চারদিকে ফুলে ফুলে ভরে ওঠে। বসন্ত বরণেও আমরা সেই ফুলের রঙেই সাজতে পছন্দ করি। আর অন্য রং ছাপিয়ে সামনে আসে হলুদ রং। প্রকৃতিতে হলুদ, ...

    Read More
  • বসন্ত এলো বলে…

    5 days ago

    বাঙালি সংস্কৃতির অন্যতম উৎসব বসন্ত এলো বলে, সবাই অপেক্ষায় বাসন্তী রঙে নিজেকে রাঙাতে। বিশেষ দিনে প্রকৃতির রূপের সঙ্গে মিল রেখে সাজের পথ বাতলে দিয়েছেন ওমেন্স ওয়ার্ল্ডের সিইও ...

    Read More
  • ভালোবাসা দিবসে ওমেন্স ওয়ার্ল্ডে

    5 days ago

    পুরো বছরের অপেক্ষা শেষে এলো ভালোবাসা দিবস। বিশেষ দিনটিতে নিজেকে সাজান উৎসবের রঙে আর মেতে উঠুন ভালোবাসার উচ্ছ্বাসে।  সৌন্দর্য সচেতন নারীরা সাশ্রয়ী মূল্যে ভালোবাসা দিবসে ওমেন্স ওয়ার্ল্ডে ...

    Read More
  • ছাড়ের মৌসুম!

    5 days ago

    রাজধানী জুড়েই চলছে ছাড়ের মৌসুম। চারদিকে ফ্যাশন হাউসগুলোতে অবিশ্বাস্য ছাড়। কোনো কোনা হাউস তো সব পণ্যে দিচ্ছে ৭০শাতাংশ ছাড়। শপিংমলগুলোতে উপচে পড়া ভিড় দেখে মনে হতেই পারে, হয়ত ...

    Read More
  • হার্ট শেপের কুকিজ আর চকলেট

    5 days ago

    ভালোবাসা দিবসে প্রিয়জনকে আরেকটু বেশি খুশি করার একটা সুযোগ নিতে পারেন। হার্ট শেপের কিছু কুকিজ আর চকলেট ঘরেই তৈরি করে নিন। খুব সহজ, জেনে নিন রেসিপি:  চকলেটযা ...

    Read More
  • মাতৃত্বকালীন ছুটি ৯ মাস!

    5 days ago

    দেশের কর্মজীবী নারীদের মা হওয়ার প্রতি আগ্রহ যেন দিন দিন কমে যাচ্ছে। এর মূলে রয়েছে গর্ভাবস্থায় ও সন্তান জন্মের পর দেখভালের জন্য পর্যাপ্ত সময় না পাওয়া।  আবার ...

    Read More
  • Read

    More