• Page Views 33

পরিস্থিতি জটিল হচ্ছে প্রত্যাবাসন অনিশ্চিত

রোহিঙ্গা সংকটের দু’বছর পূর্ণ হলেও তা সমাধানের কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। পরিস্থিতি জটিল থেকে জটিলতর হচ্ছে। বিশেষ করে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবাসন শুরুর লক্ষ্যে দুই দফায় দিনক্ষণ নির্ধারণ করা হলেও তা ব্যর্থ হয়। উপযুক্ত নিরাপত্তা নেই বলে রোহিঙ্গারা নিজ বাসভূমে ফিরে যেতে অনীহা প্রকাশ করে। এতে অনিশ্চতায় পড়েছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন।

২০১৭ সালের এই দিনে মিয়ানমারের সেনা, বিজিপি, নাটালা বাহিনীর নির্যাতনের মুখে নিজ দেশ ছেড়ে পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে শুরু করে এসব রোহিঙ্গা। উখিয়া ও টেকনাফে স্থানীয় লোকের সংখ্যা পাঁচ লাখের কিছু বেশি হলেও এই দুই থানায় বর্তমানে রোহিঙ্গার সংখ্যা ১১ লাখের বেশি। ফলে এখানে স্থানীয় বাংলাদেশি অধিবাসীরা সংখ্যালঘু হয়ে পড়েছে। বিপুল পরিমাণ বনভূমি ধ্বংসসহ পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতি করছে রোহিঙ্গারা।

রোহিঙ্গা সংকটের দু’বছর উপলক্ষে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর এক বিবৃতিতে বলেছে, দুই বছর আগে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী রাখাইন রাজ্যে নিরীহ মানুষের ওপর নির্বিচারে নিষ্ঠুর হামলা চালায়। সংকট নিরসনে চেষ্টা চালিয়ে যাবে যুক্তরাষ্ট্র। রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ায় বাংলাদেশের প্রশংসা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। বিবৃতিতে কফি আনান কমিশনের রিপোর্ট বাস্তবায়ন করার জন্য মিয়ানমার সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। রোহিঙ্গাদের স্বেচ্ছায় ফিরে যাওয়া নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র কাজ করবে বলেও বিৃবতিতে বলা হয়।

এদিকে দিনটিকে গণহত্যা দিবস হিসেবে পালন করবে কক্সবাজারে থাকা রোহিঙ্গারা। এ লক্ষ্যে রোহিঙ্গারা ক্যাম্পে ব্যাপক সমাগমের প্রস্তুতি নিয়েছে। তারা উখিয়ার ২২টি ক্যাম্পের রোহিঙ্গাদের কুতুপালং ডি-৪ নামক স্থানে জমায়েত করার উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানিয়েছেন বালুখালী ক্যাম্পের বাসিন্দা ও ভয়েচ অব রোহিঙ্গা নামের সংগঠনের নেতা মাস্টার নুরুল কবির। তিনি বলেন, ইতিমধ্যে প্রতিটি ক্যাম্প কমিউনিটির নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করা হয়েছে। নিজ নিজ ক্যাম্পে তারা ব্যানার, ফেস্টুন বিতরণ করেছে।

বাংলাদেশ সরকার অনুপ্রবেশকারী এসব রোহিঙ্গাকে স্বদেশে ফেরত পাঠাতে কূটনৈতিকভাবে জোর প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মানবিকতায় কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে আশ্রয় নেয়া ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গাকে দীর্ঘ ২ বছর সব ধরনের সাহায্য-সহযোগিতা অব্যাহত রয়েছে। সম্প্রতি চীন সফরে রোহিঙ্গা সংকট সমাধান ও তাদের প্রত্যাবাসনের ওপর জোর দেন প্রধানমন্ত্রী।

এর পরপরই মিয়ানমারের পক্ষ থেকে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া শুরু করার জন্য সে দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ সফরে আসে এবং রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলে। এ সময় রোহিঙ্গারা তাদের নির্যাতনের বর্ণনার পাশাপাশি নাগরিকত্বসহ বেশ কয়েকটি দাবি তুলে ধরে।

প্রতিনিধি দল মিয়ানমারে ফিরে গিয়ে প্রত্যাবাসন শুরু করার জন্য ৩ হাজার ৪৫০ জন রোহিঙ্গার তালিকা দেয়। গত ২২ আগস্ট তাদের প্রত্যাবাসনের জন্য দিনক্ষণ ঠিক করা হয়। দু’দেশের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হলেও প্রত্যাবাসনে তালিকাভুক্ত কোনো রোহিঙ্গা স্বেচ্ছায় মিয়ানমারে ফিরতে রাজি না হওয়ায় ওইদিন প্রত্যাবাসন শুরু করা সম্ভব হয়নি বলে জানান শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার আবুল কালাম।

তিনি বলেন, এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া। যারা স্বেচ্ছায় মিয়ানমারে ফিরতে রাজি হবেন তাদেরই ফেরত পাঠানো হবে। উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিকারুজ্জামান চৌধুরীও একই কথা বলেন।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকার পরও ২২ আগস্ট রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু না হওয়ার পেছনে সংশ্লিষ্টদের অভিজ্ঞতার অভাব রয়েছে বলে দাবি করেছেন উখিয়া প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, ভবিষ্যতে প্রত্যাবাসন শুরুর আগে অভিজ্ঞতাসম্পন্ন লোকজনকে প্রত্যাবাসন কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করতে হবে।

এর আগে গত বছরের ১৫ নভেম্বর একইভাবে প্রত্যাবাসন শুরু করার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত রোহিঙ্গারা স্বেচ্ছায় ফিরতে না চাওয়ায় সে চেষ্টাও ব্যর্থ হয়। যার ফলে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া গ্যাঁড়াকলে পড়েছে।

এদিকে প্রত্যাবাসন বিলম্বিত হওয়ায় রোহিঙ্গারা জড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন ব্যবসা-বাণিজ্য এবং অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সংগ্রাম কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও পালংখালী ইউপি চেয়ারম্যান এম গফুর উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ২ বছরে ক্যাম্পে রোহিঙ্গারা যেভাবে ব্যবসা-বাণিজ্যে জড়িয়ে পড়েছে তারা সহজে মিয়ানমারে ফিরে যাবে বলে মনে হয় না। তাই সরকারের উচিত, তাদেরকে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসা। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন দুই বছরেও আলোর মুখ না দেখায় হতাশ ও ক্ষুব্ধ হয়ে উঠছেন স্থানীয়রা। কারণ রোহিঙ্গারা দিন দিন বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ছে।

স্থানীয়রাও রোহিঙ্গাদের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের কারণে দিন দিন ক্ষুব্ধ হয়ে উঠছেন। তাদের দাবি, আমরা রোহিঙ্গাদের প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে আশ্রয় দিয়েছিলাম। কিন্তু তারা এখন বেপরোয়া হয়ে প্রতিটি ক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশেষ করে ২২ আগস্ট রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গুলি করে হত্যা করে টেকনাফের যুবলীগ নেতা ফারুককে। উখিয়া-টেকনাফজুড়ে এর প্রভাব পড়েছে। রোহিঙ্গা খেদাওসহ বিভিন্ন স্লোগানও দেন স্থানীয়রা।

শনিবার বন্ধ ছিল রোহিঙ্গাদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ : ইউএনএইচসিআরের পরামর্শে শনিবার শুরু হয়নি অবশিষ্ট রোহিঙ্গাদের সাক্ষাৎকার পর্ব। এ ব্যাপারে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার আবুল কালাম সাংবাদিকদের বলেন, ইউএনএইচসিআরের পরামর্শে শনিবার সাক্ষাৎকার কার্যক্রম পরিচালনা করা যায়নি। আবার রোববার (আজ) রোহিঙ্গারা ক্যাম্পে গণহত্যা দিবস পালন করবে। সব মিলিয়ে দু’দিন বন্ধ রাখা হয়েছে। সোমবার থেকে পুনরায় কাজ শুরু করা হবে। টেকনাফ শালবাগান রোহিঙ্গা শিবিরের ইনচার্জ খালেদ হোসেনও একই তথ্য জানান।

এদিকে শনিবার টেকনাফের শালবাগান-জাদিমুরা-লেদাসহ অন্য ক্যাম্পের এনজিওগুলো অঘোষিতভাবে কাজ বন্ধ করেছে। বৃহস্পতিবার উগ্রপন্থী রোহিঙ্গাদের হাতে স্থানীয় যুবলীগ নেতা নিহতের জের ধরে স্থানীয়রা বেশ কিছু এনজিও সংস্থার সাইনবোর্ড ও বেড়া ভাংচুর করেন। এতে ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে এনজিওগুলো কাজে বিরত থাকে। তবে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার আবুল কালাম জানিয়েছেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কোনো ছুটি ঘোষণা করা হয়নি। শুধু রোহিঙ্গাদের সাক্ষাৎকার নেয়া স্থগিত ছিল।

গত ২২ আগস্ট প্রত্যাবাসনকে কেন্দ্র করে নির্বাচিত ১ হাজার ৩৭ পরিবারের ৩ হাজার ৪৫০ রোহিঙ্গার মধ্যে ৩৩৯টি পরিবারের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করে তাদের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল- তারা মিয়ানমারে ফিরে যাবে কি না। কিন্তু একজন রোহিঙ্গাও মিয়ানমারে ফিরে যেতে সম্মত হয়নি। ফলে ওইদিন নির্ধারিত প্রত্যাবাসন শুরু করা যায়নি। অবশিষ্ট ৬৯৮ পরিবারের সাক্ষাৎকার শনিবার পুনরায় আরম্ভ হওয়ার কথা ছিল।

রোহিঙ্গারা প্রত্যাবাসনের আগে তাদের বেশ কিছু দাবি পূরণের আবেদন জানিয়েছে মিয়ানমার সরকারের প্রতি। যেসব দাবি না মানলে তারা ফিরে যাবে না বলে জানিয়েছে। দাবিগুলো হচ্ছে- রোহিঙ্গা স্বীকৃতি দিয়ে নাগরিকত্ব প্রদান, ভিটেবাড়ি ও জমিজমা ফেরত, আকিয়াব জেলায় এডিবি ক্যাম্পে আশ্রয়ে থাকা রোহিঙ্গাদের নিজ বাড়িতে ফেরত, বুচিদং ও মংডু জেলায় বিভিন্ন কারাগারে বন্দি রোহিঙ্গাদের মুক্তি, হত্যা-ধর্ষণের বিচার ও জাতিসংঘ রক্ষী মোতায়েন।
সূত্র: দৈনিক যুগান্তর

Share

ওএসডি হচ্ছেন জামালপুরের ডিসি

Next Story »

চট্টগ্রাম বন্দর পর্যবেক্ষণে আইএমওর তদন্ত দল

Leave a comment

LifeStyle

  • বাংলাদেশে গণমাধ্যম স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছে না : ব্রিটিশ হাইকমিশনার

    3 months ago

    বাংলাদশে নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন বলেছেন, বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিত করতে মিডিয়ার স্বাধীনতা নিশ্চিত হতে হবে। একই সাথে তিনি গত ১৫ বছরে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নতির ...

    Read More
  • এটি এম শামসুজ্জামানের জন্য মেডিকেল বোর্ডের মিটিং

    3 months ago

    বর্তমানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন আছেন ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান। সেখানে তিনি অধ্যাপক ড. আতিকুর রহমানের তত্ত্বাবধায়নে ভিআইপি ফ্লোরের দ্বিতীয় তলায় ২১২ ...

    Read More
  • ১৫ এপ্রিল প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা

    6 months ago

    ১৫ এপ্রিল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তিন থেকে চার ধাপে সম্পন্ন হবে এ পরীক্ষা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব আকরাম আল ...

    Read More
  • মাইগ্রেনের ব্যথায়

    6 months ago

    মাইগ্রেনের ব্যথায় যখন কেউ কষ্ট পান, তার জন্য এটা অসহনীয় হয়ে যায় অনেক সময়। তীব্র মাথাব্যথা থেকে মুক্তি পেতে, প্রথমেই ঘরোয়া কিছু পদ্ধতি মেনে দেখুন।  যা করতে ...

    Read More
  • মুড সুইং …

    6 months ago

    মৌসুমীর দুই বাচ্চা, মাত্র দেড় বছরের ব্যবধান দু’জনের। এদিকে সাহয্য করারও তেমন কেউ নেই। বাচ্চা-ঘরের কাজ সামলে তার মেজাজ যেন সব সময়ই খারাপ থাকে। কেউ ভালোভাবে কিছু ...

    Read More
  • সুখী হতে ভালোবাসুন

    6 months ago

    গত দু’দিন ধরে অনেকেই ইন্টারনেটে ফিনল্যান্ডের ছবি বের করে দেখছি কেন, দেশটি সব থেকে সুখী, কেন এর মানুষগুলোও সব থেকে সুখী। এসবই যেন মাথায় ঘুরছে সারাক্ষণ।  আসলে ...

    Read More
  • এতো সহজে আইসক্রিম তৈরি!

    6 months ago

    ই গরমে নাম শুনলেই আইসক্রিম খেতে ইচ্ছে করে? আসুন মজার একটি আইসক্রিম ঘরেই তৈরি করি।  যা যা লাগবে: হুইপ ক্রিম ২ কাপ, ২ কাপ ফ্রেশ ক্রিম, চিনি ...

    Read More
  • হরমোনাল ইমব্যালেন্স | কিভাবে আনবেন খাদ্যাভ্যাস ও লাইফস্টাইল-এ চেঞ্জ?

    6 months ago

    আমরা এমন একটা সময়ে বাস করি যেখানে সবাই সৌন্দর্য বা স্বাস্থ্য রক্ষার জন্য নিজের ওজন ও ফিগারের দিকে চড়া নজর রাখি। সেখানে হঠাৎ যদি একদিন দেখি শখের জামাটার হাতা টাইট হয়ে ...

    Read More
  • ১৫০ জনকে চাকরি দেবে ওয়ান ব্যাংক

    6 months ago

    ওয়ান ব্যাংক লিমিটেডে ‘ট্রেইনি সেলস অফিসার’ পদে ১৫০ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ২৫ মার্চ পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন। প্রতিষ্ঠানের নাম: ওয়ান ব্যাংক লিমিটেড পদের নাম: ...

    Read More
  • চাকরি দিচ্ছে মার্কেন্টাইল ব্যাংক

    6 months ago

    মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেডে ‘গ্রুপ লিডার’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ০৪ এপ্রিল পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন। প্রতিষ্ঠানের নাম: মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড পদের নাম: গ্রুপ লিডারশিক্ষাগত ...

    Read More
  • Read

    More